তারেক রহমানকে বলছি

Mejor-Akhtaruzzamanসিটিএন ডেস্ক:
বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছেন দলের সাবেক সাংসদ মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান। তারেক রহমানকে উদ্দেশ করে দেশ ও জনগণের রাজনীতির বিষয় নিয়ে নানা কথা বলেছেন তিনি। তারেক রহমানকে বাংলাদেশের ভবিষ্যত প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য করণীয় দিক নির্দেশনাও দেন তিনি। সেই সাথে চাটুকারদের ত্যাগ করে প্রকৃত শুভাকাংখীদের কাছে টেনে নেয়ার আহবান জানান তিনি। তারেক রহমানকে বলছিৃ
মঙ্গলবার রাত ৯ টার দিকে তিনি ফেসবুকে এ নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। তার ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে দেয়া হলো।
“তারেক রহমানকে বলছি- রাজনীতি ব্লেম গেম নয়।
সম্প্রতি লন্ডনের এক সভার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বলছি-
আঙ্কেল, সরকারে কিন্তু আপনারা ছিলেন। আপনি যখন জানেন শেখ হাসিনা আগে থেকেই জানতো তাহলে আপনারাও জানতেন ! বোকার মত কথা বলে দায় দায়িত্ব নিজের কাঁধে নিয়ে কি সামলাতে পারবেন! ছেলেমি করে নিজের অবস্থান আরো হাস্যকর করে ফেলছেন তাকি বুঝতে পারছেন? জনগণ আপনাকে জাতির আগামী দিনের নেতা মনে করে। নেতা কখনই আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দেয় না, কারণ নেতারা কখনই ভুল করে না। কোনো নেতা ভুল করলে তার মাশুল কিন্তু জীবন দিয়ে দিতে হয়। রাজনীতি কোনো ব্লেম গেম না।
শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে নয়, শেখ হাসিনার চেয়ে ভাল কর্মসূচির ঘোষণা দেন। যাতে রাজনীতির ইতিবাচক জনমত গড়ে ওঠে। শেখ হাসিনা বাংলাদেশের শেষ প্রধানমন্ত্রী নন। জাতি শেখ হাসিনার পরের প্রধানমন্ত্রী খুঁজছে। সেটি আপনি হতে পারেন কিনা এবং হতে পারলে জনগণের কি সুবিধা হবে সেই কর্মসূচি দেন। পেশা ও কর্মজীবীরা রাজনীতির সুবিধাভোগী এবং তারা কখনই রাজনীতির নিয়ামক নয়। লন্ডনে বসে সুবিধাভোগীদের সামনে কথা বলেন এবং রাজনীতির কারণেই বলতে হবে। কিন্তু কথা বলেন বাংলাদেশের জনগণের জন্য যারা আপনাকে ক্ষমতায় বসাবে। আপনার সামনে বসে যারা আপনার বক্তৃতা শুনছে তাদের সবাই কিন্তু বাংলাদেশে ভোট দেয় না। আপনাকে ভোট দিবে বগুড়ার গাবতলির গরিবদুঃখী মানুষেরা। ওরাই আপনাকে আগামী দিনে ক্ষমতায় বসাবে। ঐ দারিদ্রপিড়িত মানুষেরা অপেক্ষা করছে আপনার জন্য। লন্ডনে বসে ওদের কথা বলেন, খোঁজ নেন ঐ সকল মানুষদের যারা আপনার কাছে নিতে নয় শুধু দিতে আসবে। সভা লন্ডনের লোকদের নিয়েই করবেন কিন্তু কথা বলবেন বগুড়া তথা বাংলাদেশের জনগণের জন্য। দয়া করে আপনার পাশে তোষামোদকারী নয়, ভাল সচেতন পরামর্শক নিন। সামনে আপনার সুদিন কিন্তু চাটুকারদের জন্য সে সুযোগ আবার হারায়েন না। ধন্যবাদান্তে, মেজর অব. মোঃ আখতারুজ্জামান, সাবেক সংসদ সদস্য।”
ঢাকাটাইমস


শেয়ার করুন