খুলছে পর্যটন-বিনোদন কেন্দ্র, গণপরিবহন চলাচলে অর্ধেকের শর্ত বাতিল

সিটিএন ডেস্কঃ

লকডাউন শিথিলের পর এবার পর্যটন কেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনোদন কেন্দ্র খোলার অনুমতি দিয়েছে সরকার। তবে মোট আসনের অর্ধেকের বেশি কোনোভাবেই ব্যবহার করা যাবে না। আগামী ১৯ আগস্ট থেকে খোলা থাকবে পর্যটন কেন্দ্রসহ সব বিনোদন কেন্দ্র। এ ছাড়া সড়কে অর্ধেক যানবাহন চলার নিয়মও তুলে নেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এর আগে ১১ আগস্ট থেকে লকডাউন শিথিল করে সরকারি-বেসরকারি সব অফিস, ব্যাংক থেকে শুরু করে গণপরিবহন, শপিং মল, দোকানপাট খুলে দেয়ার ঘোষণা দেয় সরকার।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বলা হয়েছে, ১০ তারিখ পর্যন্ত যে লকডাউন রয়েছে তা পরদিন ১১ আগস্ট থেকে শিথিল করা হবে।

ওই প্রজ্ঞাপনে আরো বলা হয়, ১১ আগস্ট থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরকারি, বেসরকারি সব ধরনের অফিস ও ব্যাংক খোলা থাকবে।

শপিংমল, বাজার ও অন্যান্য দোকানপাট সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। বাস, ট্রেন, লঞ্চসহ সব গণপরিবহন চলবে আসন সংখ্যার সমান যাত্রী নিয়ে। তবে সড়কপথে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, যানবাহন মালিক ও শ্রমিকদের সাথে কথা বলে মোট পরিবহনের অর্ধেক চালু করা হবে।

অর্ধেক আসন খালি রেখে রাত ১০টা পর্যন্ত হোটেল রেস্তোরাঁগুলো খাবার পরিবেশন করতে পারবে। সব প্রকার শিল্প কারখানা চালু থাকবে। কিন্তু সব ক্ষেত্রে মাস্ক পরা ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে।

তবে ওই প্রজ্ঞাপনে জনসমাগম হয় এমন অনুষ্ঠান সম্পর্কে কিছু বলা ছিল না। নতুন প্রজ্ঞাপনে এ বিষয়ে নির্দেশনার দেয়ার পাশাপাশি গণপরিবহন চলাচলে সীমিত পরিসরের নির্দেশনাটি তুলে নেয়া হলো।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের উর্ধ্বমুখী সংক্রমণরোধে জুলাই মাসের এক তারিখ থেকে দুই দফায় ১৪ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন দেয়া হয়। ঈদ উদযাপনের জন্য ২৩ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন শিথিল করা হয়। এর আট দিন বিরতির পর আবারো ১৪ দিনের লকডাউন দেয়া হয়। তা আরো পাঁচ দিন বাড়িয়ে ১০ আগস্ট পর্যন্ত করা হয়। এরমধ্যে দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার প্রায় অপরিবর্তিত থাকার মধ্যে লকডাউন শিথিল করার সিদ্ধান্ত জানায় সরকার।

বুধবার পর্যন্ত দেশে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছে ১৩ লাখ ৮৬ হাজার ৭৪২ জন। এর মধ্যে বুধবার আক্রান্ত হয়েছে ১০ হাজারের অধিক। একইভাবে দেশে এ পর্যন্ত করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ২৩ হাজার ৩৯৮ জনে। এর মধ্যে বুধবার এক দিনেই মৃত্যু হয়েছে ২৩৭ জন।


শেয়ার করুন