ত্বকের স্বাভাবিক রঙ অটুট থাকুক

ফিচার ডেস্ক

সহজে যত্ন নিতে ডাব বা নারকেলের পানি ব্যবহার করতে পারেন। এগুলো ত্বকের খুবই উপকারী। ত্বকের কালো ছোপ দাগ দূর করতে ডাবের পানি বরফ করে ব্যবহার করতে পারেন ত্বকে। তাছাড়া স্নানের জলে গোলাপজল ও লেবুর রস মিশিয়ে গোসল করুন
ত্বকের রঙ নিয়ে আজকাল আর লোকে ভাবে না। সুস্থ-সুন্দর ত্বক ধরে রাখাটাই এখনকার প্রধান চাহিদা। তবে দূষণের প্রভাবে ত্বক তো ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেই। সব ধরনের ত্বকেই একটা কালচেভাব দেখা দিচ্ছে। ফলে বাহ্যিক যত্ন ও পরিচ্ছন্নতায় ত্বকের স্বাভাবিক রঙ ধরে রাখাটা কঠিনই বৈকি! ত্বকের নিজস্ব রঙ ধরে রাখতে ও ত্বককে ভেতর থেকে পরিচ্ছন্ন রাখতে বাইরে থেকে যেমন যত্ন নিতে হবে, তেমনি খাওয়া-দাওয়ার প্রতিও নজর দিতে হবে। খাবারের প্রসঙ্গ দিয়েই যদি শুরু করা হয়, তাহলে খাদ্যতালিকায় নিয়মিত রাখতে হবে ফাইবার, খনিজ, ভিটামিন, স্বাস্থ্যকর ফ্যাট ও প্রোটিনযুক্ত খাবার। এগুলো ত্বকের রঙ নষ্ট হতে দেয় না।
রোজকার খাদ্যতালিকায় পরিমিত পরিমাণে এ জাতীয় খাবার রাখুন। মৌসুমি ফল ও সবজি খাওয়ার পাশাপাশি দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার খেতে হবে। প্রোটিনের চাহিদা পূরণে ডিম, মাছ ও পরিমিত পরিমাণে মাংস খেতে হবে।
এবার আসা যাক ত্বকের বাহ্যিক যত্নের কথায়। ত্বকের রঙ যেন তামাটে বা কালচে না হয়ে যায়, তাই প্রতিদিনই সময় করে পরিচর্যা করতে হবে।
তেঁতুল ও লেবু ত্বকের উজ্জ্বলতা ও রঙ উন্নত করতে সহায়তা করে। সপ্তাহে দুদিন তেঁতুলের পেস্ট ত্বকে ব্যবহারে উপকার পাবেন। তেঁতুলের পেস্ট ত্বকে ১৫ মিনিট লাগিয়ে রেখে ঠাণ্ডা পানির ঝাপটায় মুখ ধুয়ে নিতে হবে। তেঁতুল ব্যবহার করতে না চাইলে লেবু ও মধু একসঙ্গে মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে অপেক্ষা করুন। ১৫ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। সপ্তাহে একদিন পর পর এটা ব্যবহার করা যাবে।
ত্বকের উপরিভাগের কালচেভাব দূর করতে মসুর ডাল বেশ উপকারী। দুধে মসুর ডাল কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখতে হবে। দুধসহ মসুর ডাল বেটে পেস্ট তৈরি করে মুখে লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তারপর আলতো ম্যাসাজ করে পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এ মিশ্রণে অল্প হলুদগুঁড়া ও লেবুর রস মিশিয়ে নিতে পারেন।
সহজে যত্ন নিতে ডাব বা নারকেলের পানি ব্যবহার করতে পারেন। এগুলো ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। ত্বকের কালো ছোপ দাগ দূর করতে ডাবের পানি বরফ করে ব্যবহার করতে পারেন ত্বকে। তাছাড়া স্নানের জলে গোলাপজল ও লেবুর রস মিশিয়ে গোসল করুন। এতে ত্বকের কালচেভাব দূর হবে ও রঙও ভালো হবে। গোসলের পানিতে জিরা ভিজিয়ে রেখে স্নান করুন। জিরা বেটে নিয়ে তাতে দুধ মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করেও লাগাতে পারেন।
আমরা জানি, টমেটো অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ। পাশাপাশি তা ত্বকের দাগও দূর করে। ত্বকের উজ্জ্বলতা ও মসৃণতা ধরে রাখতেও এর জুড়ি নেই।

সূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট ও বায়োমেডি


শেয়ার করুন


একই রকম আরও কিছু পোস্ট