নির্বাসন থেকে শেখ হাসিনার দেশে ফেরার দিন আজ

ctnআওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ বুধবার ১৭ মে। ১৯৮১ সালের এই দিনে প্রায় ছয় বছর নির্বাসনে থেকে দেশে ফিরে আসেন তিনি। ছয় বছরের নির্বাসিত জীবনে ভারত, জার্মান, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশে ঘুরে বেড়াতে হয় তাকে।
আজকের দিনে বিকাল সাড়ে চারটায় ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের ৭৩৭ বোয়িং বিমানে ভারতের রাজধানী দিল্লি থেকে কলকাতা হয়ে সে সময়ের ঢাকা কুর্মিটোলা বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেন শেখ হাসিনা। সেদিন বঙ্গবন্ধু কন্যাকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানান লাখো মানুষ। স্বাগত জানাতে আসা লাখো জনতার কণ্ঠে ছিল গগণবিদারী স্লোগান, ‘শেখ হাসিনা তোমায় কথা দিলাম, মুজিব হত্যার বদলা নেবো।’
বাংলাদেশের জনগণের ভালোবাসার জবাবে সেদিন শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলার মানুষের পাশে থেকে মুক্তির সংগ্রামে অংশ নেওয়ার জন্য আমি দেশে এসেছি। আমি আওয়ামী লীগের নেত্রী হওয়ার জন্য আসিনি। আপনাদের বোন হিসেবে, মেয়ে হিসেবে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী আওয়ামী লীগের কর্মী হিসেবে আমি আপনাদের পাশে থাকতে চাই।’
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নির্মমভাবে নিহত হন। এ সময় তাঁর দুই মেয়ে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা প্রবাসে থাকায় ঘাতকদের গুলি থেকে বেঁচে যান ঠিকই কিন্তু পঁচাত্তরের পরে ক্ষমতা দখলকারীদের অসহযোগিতায় দেশে আসতে পারেননি আজকের প্রধানমন্ত্রী।
.
স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের পর শেখ হাসিনা (ছবি- ফোকাস বাংলা)ছয় বছর পরে দেশে ফেরেন আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়ে। ১৯৮১ সালের ১৪, ১৫ ও ১৬ ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে শেখ হাসিনার অনুপস্থিতিতে তাকেই দলের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। এরপর থেকে তিনি দলটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি দেশে ফিরেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সংগ্রামে লড়াই করেন।শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ স্বৈরাচারী শাসকদের বিরুদ্ধে তীব্র গণআন্দোলন গড়ে তোলে। তার নেতৃত্বেই দলটি দীর্ঘ প্রায় দুই যুগ ধরে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য আন্দোলন-সংগ্রাম অব্যাহত রাখলে ১৯৯০ সালে স্বৈরশাসকের পতন ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হয়। আর মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার আদায়সহ গণতান্ত্রিক আন্দোলন করতে গিয়ে কয়েকবার গৃহবন্দি হন শেখ হাসিনা। ১/১১ সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই গ্রেফতার হয়ে প্রায় ১১ মাস বিশেষ কারাগারে কারাবন্দিও ছিলেন তিনি।
তার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ এ পর্যন্ত তিন মেয়াদে ক্ষমতায় এসেছে। প্রথমবার ১৯৯৬ সালের ১২ জুনের নির্বাচনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে বিজয়ী হয়ে ২৩ জুন সরকার গঠন করে তারা। দ্বিতীয়বার ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আওয়ামী লীগসহ মহাজোট বিজয়ী হয়ে ২০০৯ সালের ৬ জানুয়ারি সরকার গঠন করে। সর্বশেষ ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের বিজয় নিয়ে ১২ জানুয়ারি সরকার গঠন করে তারা। তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হন শেখ হাসিনা।
দিবসটি যথাযোগ্য মর্যালদায় পালন করতে বিস্তারিত কর্মসূচি হাতে নিয়েছে দলটি। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, আগামীকাল সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো এবং বিকাল তিনটায় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা সভা।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এক বিবৃতিতে দোয়া, মিলাদ মাহফিল, বিজয় র্যানলি ও আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন করার জন্য দল ও এর সহযোগী-ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠনের সবস্তরের নেতাকর্মী-সমর্থক, শুভানুধ্যায়ী প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।


শেয়ার করুন


একই রকম আরও কিছু পোস্ট