সাগরপথে মালয়েশিয়া পাচারের সময় টেকনাফে আটক ২১

coxsbazar-human-trafkingসাগরপথে মালয়েশিয়া পাচারের সময় কক্সবাজারের টেকনাফে ১৯ রোহিঙ্গাসহ ২১ জনকে আটক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ভোরে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের হাতিয়ার ঘোনা এলাকায় অভিযান চালিয়ে এদের আটক করা হয় বলে জানান টেকনাফর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ আশরাফুজ্জামান।

আটকরা হলেন দালাল টেকনাফ সদর ইউনিয়নের হাতিয়ার ঘোনা এলাকার মোহাম্মদ তৈয়ূবের স্ত্রী বুলবুলি (৩৫) এবং একই এলাকার মোক্তার আহমদের ছেলে মোহাম্মদ খলিল ওরফে ইসমাইল (৩৬), মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশের (আরাকান) মংডু জেলার বাসিন্দা জামাল হোসেন (২২), মো. জোবাইর (১৯), মো.ইললয়াছ (১৯), মো.রফিক (১৯), মো.ইদ্রিস (১৯), নুর সালাম (১৯), মো.সেলিম (১৯), মো.আয়ুব (২০), মো. ইউনুস (৪০), মোহাম্মদ রফিক (২০), জোবায়ের ইসলাম (১৯), জাহেদ হোসেন (১৯), আব্দুল হক (৪০), আছিয়া বেগম (১৯), সমিরা আক্তার (১৯), রফিকা বেগম (২৫) ও আজিদা বেগম (১৯)।

তাছাড়া দুই শিশু রয়েছে।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে আটক দুই দালালসহ চারজনকে আসামি করে মামলা করেছে বলে জানান পরিদর্শক আশরাফুজ্জামান।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের কিছু নাগরিক অনুপ্রবেশ করে টেকনাফের হাতিয়ার ঘোনা এলাকায় অবস্থান করছে এমন খবরে পুলিশ অভিযান চালায়। এসময় স্থানীয় মোহাম্মদ তৈয়ূবের বাড়িতে জড়ো করা নারী ও শিশুসহ ১৯ রোহিঙ্গাকে পাওয়া যায়।

“ঘটনায় জড়িত দুই বাংলাদেশিকে আটক করা সম্ভব হলেও কয়েকজন পালিয়ে যায়।”

পুলিশ কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামান বলেন, “আটকরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, ‘সমুদ্রপথে মালয়েশিয়ায় পাঠানোর উদ্দেশ্যে তাদের জড়ো করা হয়েছে। এ জন্য দালালরা প্রতিজনের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা করে নিয়েছে’।”

 


শেয়ার করুন


একই রকম আরও কিছু পোস্ট