মহেশখালী ভ্রমণ করলেন ইউরোপের বিলাসবহুল ভ্রমণতরীতে ৯০ পর্যটক

img_20170222_231340পর্যটন শিল্পের বিকাশে বাংলাদেশ অারো একধাপ এগিয়ে গেল। বহি:র্বিশ্বের সাথে জলপথে পর্যটক যাতায়তে অান্তর্জাতিক রুটে শুভ সূচনা করল বাংলাদেশ। তারই অংশ হিসেবে গতকাল ৯০ জন পর্যটকবাহী ইউরোপ ভিত্তিক বিলাসবহুল ভ্রমণতরী সিলভার ডিসকভার ২২ ফেব্রুয়ারী সকালে ভিড়েছে মহেশখালী দ্বীপে। স্থানীয় প্রশাসনের সার্বিক তত্বাবধানে পর্যটকরা ঘুরে দেখলেন মহেশখালীর ঐতিহ্যবাহী আদিনাথ মন্দির, বৌদ্ধ প্যাগোড়া, রাখাইন পল্লী ও পর্যটন সম্ভাবনাময় সোনাদিয়া দ্বীপ। চড়ে বেড়ালেন স্থানীয় যানবাহণ রিক্সা ও টমটম গাড়ীতে। পশ্চিম ইউরোপের মোনাকো শহরভিত্তিক সিলভার সী নামের একটি সংস্থার ব্যবস্থাপনায় ওই পর্যটকরা সাগর পথে সরাসরি মহেশখালী দ্বীপে এসে নামেন। বিভিন্ন দেশের পর্যটকের সমন্বয়ে ওই টিম মহেশখালীর বিভিন্ন পর্যটন স্পট ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সোনাদিয়া পরিদর্শন শেষে বিকেলে সাগর পথে রওয়ানা দিয়েছেন সুন্দরবনের পথে। সাগর পথে বাংলাদেশে এটিই প্রথম কোন ইন্টারন্যাশনাল ট্যুর। সাগর পথে বাংলাদেশে পর্যটক আগমনের এই বিষয়টি দেশের পর্যটন খাতে বড় ধরনের ইতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাগেছে, বাংলাদেশ দীর্ঘ দিন থেকে শ্রীলঙ্কা, ভারত-মিয়ানমারসহ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সাথে সাগর পথে ট্যুরিজম ডেভেলপ করার প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছিল। গত একবছর চেষ্টার পর এ দেশীয় এজেন্ট জার্নি প্লাসের মাধ্যমে ইউরোপ ভিত্তিক সংস্থা সিলভার সী’র মাধ্যমে বিলাসবহুল ভ্রমণতরী সিলভার ডিসকভার নামের একটি জাহাজ নিয়ে ৯০ জন পর্যটককে বাংলাদেশে পাঠাতে সম্মত হয়েছে। জানাগেছে, গত ১১ ফেব্রুয়ারী সিলভার ডিসকভার যাত্রা শুরু করে কলম্বো থেকে। শ্রীলঙ্কা ও আন্দামানে ৯ দিন অতিবাহিত করার পর সিলভার ডিসকভার বঙ্গোপসাগরে যাত্রা শুরু করে। যাত্রার ১১ দিনের মাথায় এটি গতকাল মহেশখালী পৌঁছে। সিলভার ডিসকভারের পর্যটকরা গতকাল ভোরের দিকে বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী দ্বীপ সোনাদিয়ার বাইরে জাহাজটি নোঙ্গর করে স্পীড বোট যোগে প্রথমে সোনাদিয়া ও পরে মহেশখালীর বৌদ্ধবিহার, রাখাইন পল্লী এবং আদিনাথ মন্দির ভ্রমণ করেন এবং পুরোহিতগণের সাথে সাক্ষাত করে তাদের জীবনধারা সম্পর্কে জানেন। তারা স্থানীয় প্রায় ৪০টির মত টমটম গাড়ীর বহর নিয়ে চড়ে স্থানীয় অধিবাসীদের জীবনধারা অনুভব করেন। এসময় তারা বার্মিজ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে কুশল বিনিময় করেন। এসময় মহেশখালী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: শহীদুল্লাহ পর্যটকদের টিম লিডারকে তার রচিত ” কোয়েষ্ট ফর কোয়ালিটি” নামক বই উপহার দেন।
এ ব্যাপারে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আবুল কালাম জানান, ৯০ জনের বিদেশী পর্যটক দলটি সকাল ১০ টায় মহেশখালী পৌছেন। তারা প্রথমে সোনাদিয়ায় নামেন। সেখানে পরিদর্শন শেষে মহেশখালী জেটিতে পৌছলে ককস বাজারের জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সহকারী পুলিশ সুপার বাবুল চন্দ্র বণিকের নেতৃত্বে মহেশখালী পুলিশ প্রশাসন এবং উপজেলা প্রশাসন পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তা বিধান করেন। বিকালে তারা জাহাজে ফিরে গেছেন।
জানা গেছে পর্যটকবাহী ভ্রমণতরীটি ১৩তম এবং ১৪তম দিনে সুন্দরবন ভ্রমণ করবে। তারা সেখানে সুন্দরবনের বন্য প্রাণীর অভয়ারণ্যে ঘুরে বেড়াবেন। ১৫তম দিনে এটি কলকাতার উদ্দেশে বাংলাদেশ ত্যাগ করবে। সংশ্লিষ্ট সুত্র থেকে প্র্প্ত খবরে জানা যায়, সমুদ্রপথে বিলাসবহুল জাহাজ পরিচালনাকারী ‘সিলভার সি’ গ্রুপ ৪৭টি জাহাজ দিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পর্যটক পরিবহন করছে। এদের দুটি রুটে যুক্ত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। প্রথম রুটটি হচ্ছে শ্রীলঙ্কার কলম্বো থেকে বাংলাদেশ হয়ে কলকাতা। দ্বিতীয় রুটটি হচ্ছে কলকাতা থেকে বাংলাদেশ হয়ে থাইল্যান্ড।

print


শেয়ার করুন


একই রকম আরও কিছু পোস্ট