কক্সবাজার রেলওয়ে নেটওয়ার্কের আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাজি মো: আবদুর রহমান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ইতিমধ্যে কক্সবাজারকে রেলওয়ে নেটওয়ার্কের ভিতর আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এর ফলে পর্যটকেরা খুব সহজে কক্সবাজারে আসতে পারবেন।

কক্সবাজারে Tourism Beyond 2050: Future of Mass Tourism- শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারী) রাতে তিনি এসব কথা বলেন।

জেলা প্রশাসন ও ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজম্যান্ট ডিপার্টমেন্ট-এর যৌথ উদ্যোগে একটি হোটেলের সম্মেলন কক্ষে সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সেন্টমার্টিন, সোনাদিয়া, মহেশখালী, রামু বৌদ্ধ মন্দির, মেরিন ড্রাইভ, আন্তর্জাতিক মানের হোটেলসহ বিভিন্ন পর্যটন অঞ্চলের বিস্তারিত বর্ননা তুলে ধরেন।

তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফগার্ডসহ বিভিন্ন মাধ্যমে জেলা প্রশাসন ও বীচ ম্যানেজম্যান্ট কমিটি সার্বক্ষনিকভাবে পর্যটকদের সেবা প্রদান করছে বলে তিনি সম্মেলনে উপস্থাপন করেন। সম্মেলনের আহবায়ক অধ্যাপক ড. রাশেদুল হাসান, অধ্যাপক ড. শাকের আহমেদ. ভারতের ইন্দিরা গান্ধী বিশ্ববিদ্যালযের ভাইস-চ্যান্সেলর এস পি বানচাল,থাইল্যান্ডের নরেসুরিয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের ডীন সচিšদা জেমস, নেপাল ট্যুরিজ্যম ইনষ্টিটিউটের প্রিন্সিপাল প্রাণেশ শরমা, শ্রীলংকার কলম্বো বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডা. সুরাঙ্গা সিলভা, ট্যুরিষ্ট পুলিশের সিনিয়র সহকারি পুরিশ সুপার হোসাইন মো: রায়হান কাজেমী, কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু তাহেরসহ সংশ্লিষ্টরা বক্তব্য রাখেন।

সম্মেলনে বক্তারা কক্সবাজারে পর্যটনের সম্ভাবনা ও সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেন। এতে ভারত, নেপাল, ভূটান, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড, ইন্দেনেশিয়া, নেদারল্যান্ড ও ভিয়েনা থেকে ১৮জন প্রতিনিধি, জেলা প্রশাসনের সহকারি কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট পি এম ইমরুল কায়েস, এহসান মুরাদ ও সাইয়েমা হাসান, সম্মানিত বীচ ম্যানেজম্যান্ট কমিটির সদস্য,কক্সবাজারের পর্যটন ব্যবসায়ীরাাসহ সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। ১৬ ফেব্রুয়ারী কক্সবাজারের বিভিন্ন পর্যটন স্থান পরিদর্শন করবেন অতিথিরা।

 


শেয়ার করুন


একই রকম আরও কিছু পোস্ট