শতাধিক বাংলাদেশি বন্দিকে মুক্তি দিলো বাহরাইন মোসাদ্দেক হোসেন

file সিটিএন ডেস্ক :

শতাধিক বাংলাদেশি বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে বাহরাইন সরকার। বিভিন্ন মামলা ও অভিযোগে কারাগারে থাকা এসব বাংলাদেশিকে মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সম্প্রতি জেলখানায় সাজাপ্রাপ্ত ৫৫৯ জন বন্দিকে মুক্তি দেয় দেশটির সরকার। এর মধ্যে শতাধিক বাংলাদেশি রয়েছেন বলে বাংলানিউজের একটি সূত্রে জানা যায়। পবিত্র মাহে রমজান ও ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে বন্দিদের মুক্তি দেওয়ার এ উদ্যোগ গ্রহণ করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

জেলখানার ভেতরে বিভিন্ন দেশের বন্দিদের আচার-আচরণ, নিয়ম-শৃঙ্খলা অনুসরন এবং সার্বিক বিষয়ের ওপর সমীক্ষা চালিয়ে তালিকা তৈরি করে বাহরাইনের রাজা হামাদ বিন ইসা আল-খলিফার মাধ্যমে এই ক্ষমার ব্যবস্থা করা হয়। মুক্তিপ্রাপ্ত বন্দিদের মধ্যে ভারতীয় ৬৯ জন এবং ৮২ জন পাকিস্তানিও রয়েছেন।

বাংলাদেশিদের বেশিরভাগই গাঁজা বহন ও বিক্রয়, চুরি করা মোবাইল ক্রয়-বিক্রয়, মারামারি, ছিনতাইসহ বিভিন্ন মামলায় ভিন্ন মেয়াদে সাজার আসামি ছিলেন।

মুক্তিপ্রাপ্তদের বেশিরভাগেরই দেশে ফেরার টিকেট করার মতো অর্থ নেই বলে বাংলানিউজকে জানান, বাংলাদেশ দূতাবাসের জনকল্যাণ কাজে নিয়োজিত বিশেষ প্রতিনিধি তাজ উদ্দীন শিকন্দার। রোববার (১৭ জুলাই) সরেজমিনে বাহরাইনের ঝাউ জেলখানা পরিদর্শন করে এসে তিনি জানান, দূতাবাসের পক্ষ থেকে প্রতিদিনই জেলে গিয়ে তাদের খোঁজ-খবর নেওয়া ও আউটপাস তৈরি করার জন্য ছবি তুলে আনা হচ্ছে।

তাজ উদ্দীন বাংলানিউজকে আরও জানান, বাহরাইনের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল কে এম মমিনুর রহমান বন্দিদের খোঁজ-খবর নিচ্ছেন এবং যতদ্রুত সম্ভব আউটপাস তৈরি করে বন্দিদের দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।

মুক্তিপ্রাপ্ত বন্দিদের তালিকা (সর্বশেষ সংগৃহীত): আশরাফুল মোমেন (৩৪), বাবা- আবদুল কাদের ভূইয়া

 

দ্বীন ইসলাম (৩২), বাবা- আইয়ুব আলী

রাজীব (৩৪), বাবা- সাফি উদ্দীন

আনোয়ার হোসেন খান (৩১), বাবা- এরশাদ আলী

সোহেল (২৮), বাবা- নুরু মিয়া

সুভাস দাস (৩২), বাবা- হরি কমল

ইলিয়াছ (৩৯), বাবা- ইদ্রিছ

ফারুক মিয়া (৩২), বাবা- মৃত আবুল কাশেম

মো. বক্কর দেওয়ান (৩৩), বাবা- খালেক দেওয়ান

জিএম ওয়াহিদুর রহমান (৩৮), বাবা- ইউনুস আলী গাজী

আনোয়ার হোসেন (৪০), বাবা- শামসু মিয়া

নুর উদ্দীন (৩০), বাবা- নাজিম উদ্দীন

বিল্লাল মোহাম্মদ (৩৯), বাবা- ফরিদ মিয়া

আলী আকবর (৩৪), বাবা- হেলাল উদ্দীন

মামুন (৩৩), বাবা- মাহবুবুল হক

মো. তারেক (২৭), বাবা- মো. কাঞ্চন

জাহেদ আহমেদ (৩১), বাবা- আজিজুর রহমান

রনি (৩৩), বাবা- আবুল কালাম

মো. শাহ খোকন (৩৩), বাবা- ডা. আব্দুর রশিদ

দ্বীন ইসলাম (৩২), বাবা- আইয়ুব আলী

হাবিব (৩২), বাবা- আব্দুল সামাদ

মো. সাবান খাঁ (৩৪), বাবা- নবাব খাঁ

আনোয়ার হোসেন খাঁন (৩১), বাবা- এরশাদ আলী

মো. আল মামুন (৩২), বাবা- মো. অলী উল্যা।

মুক্তিপ্রাপ্ত বন্দিদের মধ্যে মামুন (৩৩), বাবা- মাহবুবুল হক ও মো. আল মামুন (৩২), বাবা- মো. অলী উল্যা নামে দুইজন বৈধ ভিসাধারী রয়েছেন। যিনি আইনানুগ প্রক্রিয়া শেষে বাহরাইনে বৈধভাবে অবস্থান করতে পারবেন।

অপরদিকে শাহাবুদ্দীন (৩৩), তার বাবার নাম শাহজাহান হাওলাদার। এই একজনের বৈধ ভিসা রয়েছে কিন্তু তার নামে অপর একটি মামলা থাকায় তাকে বিচার প্রক্রিয়ার মুখোমুখি হতে হবে।


শেয়ার করুন


একই রকম আরও কিছু পোস্ট