নদী পর্যটন নিয়ে বিশেষ প্রামাণ্যচিত্র ‘ রিভার ট্যুরিজম ’

River Tourism_01

রবি হোসাইন অর্ক #

বাংলাদেশ নদীর দেশ। নদীকে ঘিরেই গড়ে উঠেছে নগর। প্রতিটি নদীকে ঘিরে রয়েছে আলাদা সংস্কূতি। একটু অবসরেই মানুষ নদীর কাছে যায়। নদীর সৌন্দর্য মানুষকে কাছে টানে চিরকাল। এই নদীই হয়ে উঠতে পারত পর্যটক আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু। একটু সদিচ্ছা থাকলেই নদীকেন্দ্রিক পর্যটন গড়ে তোলা যেতো। যেটা হয়ে উঠতো সরকারের রাজস্ব আদায়ের অন্যতম খাত। কিন্তু নদীকেন্দ্রিক পর্যটন নিয়ে কোন পরিকল্পনা এখন পর্যন্ত পরিপক্ক হয়নি। সম্প্রতি নদীপথে নৌ-ক্রুজ চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আন্তর্জাতিক ক্রুজ শিপ ‘সিলভার সি ক্রুজ’ প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে প্রবেশ করতে যাচ্ছে। পর্যটকবাহী এই জাহাজটি আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বাংলাদেশে আসবে। আন্তঃদেশীয় নদীকেন্দ্রিক পর্যটন চালু হলে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের অনেক মানুষ বাংলাদেশে নদীপথে ঘুরতে আসবে। বাংলাদেশের অনেক মানুষও কম খরচে ভারতে ভ্রমণে যাবে। চলছে পর্যটন বর্ষ ২০১৬। সরকারের পাশাপাশি বাংলাদেশের নদীকে ভালবেসে এগিয়ে এসেছে নদীপ্রেমী সংগঠনও। বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দল একটি প্রামাণ্যচিত্র তৈরি করতে যাচ্ছে যার শিরোনাম ‘রিভার ট্যুরিজম’। যেটি মূলত নদীকেন্দ্রিক পর্যটনকে ঘিরেই। নদীর সৌন্দর্যকে তুলে ধরার মাধ্যমে পর্যটক আকর্ষণ করে নদীকে বাঁচিয়ে রাখার জন্যেই আমাদের এই প্রচেষ্টা। জানালেন বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের প্রতিষ্ঠাতা মো. মনির হোসেন। বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দল ‘নদীর তীর ফিরিয়ে দাও’ শিরোনামে প্রথম প্রামাণ্যচিত্র তৈরি করে যেটা ১৭ মার্চ ২০১৫ ও এ বছর ২২ জুন প্রচারিত হয় জনপ্রিয় সংবাদভিত্তিক টিভি চ্যানেল এটিএন নিউজের প্রামাণ্য সময়ে। নদী পরিব্রাজক দলের দ্বিতীয় প্রামাণ্যচিত্র ‘বাঁচাও নদী বাঁচাও জীবন’ যা বিভিন্ন প্রদশৃনীতে তরুণ সমাজ ও নদীপ্রেমীদের আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়। বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে বাঁচিয়ে রাখতে হবে নদীকে তাই সরকারী ও বেসরকারীভাবে সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা খুব প্রয়োজন। বরাবরের মত এই প্রামাণ্যচিত্রটিরও পরিচালনা,পরিকল্পনা ও গবেষণার দায়িত্বে রয়েছেন নদী পরিব্রাজক মো. মনির হোসেন। বর্তমানে দৃশ্য ধারনের কাজ চলছে।


শেয়ার করুন


একই রকম আরও কিছু পোস্ট